চিকিৎসক সমাজের বাইরের কেউ নয়

সমাজ যখন সর্বৈব পঁচে যায় তখন সেই পঁচনের আঁচ চিকিৎসকের গায়েও লাগে। চিকিৎসক সমাজের বাইরের কেউ নয়,সেও সমাজেরই অংশ।তবে চিকিৎসকের সামান্যতম পঁচনটুকুও সকলের চোখে পড়ে। অন্যান্য পেশাজীবীদের বৃহত্তম পতনও অনেক ক্ষেত্রে চোখেই পড়ে না।সেজন্যই চিকিৎসা ছাত্রজীবনে স্নায়ুরোগ বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক কাজী দীন মোহাম্মদ স্যার শ্রেণীকক্ষে একদিন বলেছিলেন, “চিকিৎসকদের বহির্বাস এপ্রোনের বর্ণ সাদা শুধু শুভ্রতা ও পবিত্রতার […]

নৈতিক শিক্ষা ও আইনের অনুশাসন

বর্তমানে প্রকাশ্য দিবালোকে খুন, উত্যক্ত করার প্রতিবাদ করতে গিয়ে খুন, নিয়মিত ধর্ষণ, শিক্ষাগুরুর দ্বারাও বলাৎকার, সর্বত্র ঘুষ, দুর্নীতি, দুর্বৃত্ততা, খাদ্যে বিষ মেশানো ইত্যাদির আধিক্য লক্ষ্য করে এদেশের মানবের নৈতিকতাবোধ ও আইনের শাসন প্রায় শুণ্যে গিয়ে ঠেকেছে দেখে অনেক সমাজবিদ, মনোবিদ ও বিজ্ঞ ব্যক্তি এদেশের পাঠ্যপুস্তকে নৈতিক শিক্ষা প্রবর্তনকে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করলেও সেটাকে যথেষ্ট […]

স্থুলশরীর, সূক্ষ্মশরীর, কারণশরীর এবং শুভশুভ কর্মের বিচিত্র গতি

বৈদিক আত্মতত্ত্বে দেখা যায়, জীবাত্মা ইহলোকের স্থুলশরীর ত্যাগ করার সময় সূক্ষ্মশরীর ও কারণশরীর(চৈতন্যশক্তি)কেও সাথে করে পরলোকে নিয়ে যায়। জীবের কর্মেন্দ্রিয় এবং জ্ঞানেন্দ্রিয় নিয়ে হয় স্থুলশরীর, আর মন, বুদ্ধি ও অহঙ্কার বা আমিত্ব নিয়ে হয় সূক্ষ্মশরীর। জাগ্রত অবস্থায় তিন শরীরই কাজ করে, নিদ্রারত অবস্থায় স্বপ্ন দেখার সময় স্থুলশরীর কাজ করেনা, শুধু সূক্ষ্মশরীর ও কারণশরীর কাজ করে, […]

জগতে কে মহীয়ান, কর্ম নাকি কর্মফল?

সাকিব আল হাসান সাক্ষাৎকারে বলেছেন, “ভালো খেলে কোন লাভ নেই যদি জয়টাই না আসে”। আসলেই কি তাই? তাহলে এতদিন যে শুনে এসেছি, “জয়-পরাজয় মুখ্য নয়, অংশগ্রহণই বড় কথা”, এটা কি ভুল? এটাতো ক্রীড়াক্ষেত্রের কথা হলো। বাস্তবজীবনেও কি বলবো যে, কর্ম করে কোন লাভ নেই, কর্ম অর্থহীন যদি সাফল্যটাই না আসে? জগতে জয়-পরাজয়, সাফল্য-ব্যর্থতাকে তুল্য ভাবার […]

সুখ-দুঃখের মিথস্ক্রিয়া

অনেক দার্শনিকের মতে,জগতে সুখই দুখের মূল।তাদের অনেকে অবশ্য এই দর্শনের ব্যাখ্যা দেন নি। কিন্তু বিভিন্ন দিক থেকে এই দর্শনকে ব্যাখ্যা করলে মনে হবে,এটি বাস্তবিকই সত্য।মানব যেসব নিয়ামক দ্বারা স্থুলসুখ লাভ করে সেসবের মধ্যে রসনাসুখ এবং রতিসুখই প্রধান।অধিকাংশ স্থুলবুদ্ধিসম্পন্ন মানব এই দুই সুখের পিছনেই আমরণ ছোটে।তাদের অনন্ত অর্থের পেছনে ছুটে চলার প্রধান কারণও এই দুটোই।এই দুটোকে […]

ব্যাকরণ রম্য

অকস্মাৎ বৈয়াকরণবিদ হইবার ইচ্ছা জাগ্রত হইলো মানসলোকে, তাহাও ব্যাকরণের দুইখানা শব্দের ধাতুগত ব্যুৎপত্তি লইয়া। শব্দ দুইখানা হইলো ‘বিচার’ এবং ‘বেঁচা’ (বিক্রি) এবং তাহাও এদেশের প্রেক্ষাপটে। অধুনা এই দুইখানা শব্দকে সমার্থক শব্দ বলিয়া মনে হইলো। ভাবিলাম, একটু ব্যাকরণ ঘাটিয়া দেখি, উহারা সমধাতুজ ক্রিয়াও কিনা। আদি ইন্দো-ইউরোপীয়ান ভাষা রূপান্তরিত হইতে হইতে ক্রমে কেন্তম–শতম, শতম হইতে ইন্দো-ইরানীয় বা […]

অবহেলিত নারী সমাজ

কবি নজরুলের এক কবিতার অমর পংক্তি, “পৃথিবীতে আছে যত চির কল্যাণকর, অর্ধেক তার করিয়াছে নারী, অর্ধেক তার নর।” কবি নজরুল যখন উপমহাদেশে বসে উপরোক্ত পংক্তিদ্বয় লিখেছিলেন তখন নারীরা প্রায় গৃহবন্দীই ছিলেন। শিক্ষা, জ্ঞান, বিজ্ঞান, প্রগতি ইত্যাদি তখনও উপমহাদেশের নারীদের অজানা ছিলো। বেগম রোকেয়া সাখাওয়াত হোসেন তখন নারী জাগরণের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন বা প্রস্তুতি নিচ্ছেন মাত্র। […]

শিল্পবিপ্লব ও মানবের চেতনার পরিবর্তনের স্বরূপ

বর্তমান নীতিবিদ্যার ব্যবহারিক প্রয়োগের ক্ষেত্রে কোন নীতি ব্যবহারে অধিকাংশ মানুষের সুফল হলে সেটাকে সফল ও ব্যবহারযোগ্য নীতি বলে মেনে নেয়া হয়। নীতিটি সুফল-কুফলের অনুপাত বা উপকারী-অপকারী অনুপাত ৫১ঃ৪৯ হলেও গৃহীত হয়, আবার ৯৯ঃ১ অনুপাত হলেও গৃহীত হয়। কিন্তু নীতিশাস্ত্রের সূক্ষ্ম বিচারে কোন নীতি যদি একজন মানবের জন্যও ক্ষতিকারক হয়, সেই নীতিও গ্রহণযোগ্য নয়। নীতিশাস্ত্রের সূক্ষ্ম […]

ডেঙ্গি প্রতিক্রিয়া

যেকোন সমস্যা সমাধানের প্রধান পূর্বশর্ত হলো, রক্ষণাত্মক মানসিকতা দ্বারা সমস্যাকে ঢেকে না রেখে বা সমস্যাকে অস্বীকার না করে উদার মানসিকতা দ্বারা সমস্যাকে স্বীকার ও প্রকাশ করা। কারণ সমস্যাকেই যদি অস্বীকার করা হয় বা ঢেকে রাখা হয়, তাহলে সমস্যা সমাধানের চেষ্টাটাই শুরু করা হয়না যা শুরু করা যায়না। সমস্যাই যদি না থাকে, তার আবার সমাধান কি?! […]

শুদ্ধকর্ম

শৈশব হতেই মানবকে বিভিন্ন ধরণের গুণ অর্জনের জন্য প্রেরণা দেয়া হয়। কিন্তু সেসব প্রেরণার পশ্চাতে প্রেরণাদাতা ও গুণ অর্জনকারীর মানসিক ভাবনা ভিন্ন ভিন্ন ধরণের হয়। এই প্রেরণার ধরণ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কেউ কেউ জীবনে উন্নতি করার জন্য বিভিন্ন গুণার্জনের প্রেরণা দেয়, আবার কেউ অপরের কাছে নিজেকে দামী করার জন্য গুণী হবার প্রেরণা দেয়। কিন্তু গুণ অর্জন […]